সাদা কাগজ
Would you like to react to this message? Create an account in a few clicks or log in to continue.
Go down
avatar
নবাগত
নবাগত
Posts : 8
স্বর্ণমুদ্রা : 152
মর্যাদা : 10
Join date : 2021-06-05
View user profile

মহাকাশে দুঃস্বপ্ন Empty মহাকাশে দুঃস্বপ্ন

Sat Jun 05, 2021 11:37 pm
পর্ব : ১

ভাসতে ভাসতে জানালার কাছে
এল রুডো। কোনো কাজ নেই হাতে। যাত্রা
শুরু হয়েছে এক সপ্তাহ হলো। সঙ্গী দুই
নভোচারী এরই মধ্যে শীতল ঘুমে চলে
গেছে। রুডোর অবশ্য এখনই শীতল ঘুমে
যেতে মন চাইছে না। মহাকাশযানে
পৃথিবীর মতো জীবনযাত্রা চালিয়ে
যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ও। প্রতি ২৪ ঘণ্টায়
আট ঘণ্টা ঘুম, বাকিটা সময় বই পড়া,
জালানা অবজারবেশন ডেকে গিয়ে বাইরে
মহাকাশ দেখা, স্পেসশিপের এ-মাথা থেকে
ও মাথা ঘুরে বেড়ানো আর প্রিয়জনের
স্মৃতিচারণ করে কাটাতে চায়। যখন
একঘেয়েমি এসে যাবে তখনই কেবল শীতল
ঘুমে যাবে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে।
পৃথিবী থেকে তিন মহাকাশচারী কে নিয়ে
স্পেসশিপ রিক্ট-১৬ ছুটে চলেছে ছয় আলোকবর্ষ দূরের একটি গ্রহে। নতুন
আবিষ্কৃত গ্রহটিতেই এটিই প্রথম মনুষ্য
অফিযান। এর আগে একাধিকবার রোবট
পাঠানো হয়েছে। সব কিছু ইতিবাচক
হওয়াতেই এবার সরাসরি মানুষ যাচ্ছে।
গ্রহটির নাম রাখা হয়েছে নিনি। তিনজন
নভোচারী রয়েছেন এই অফিযানে। তিন
জনের মধ্যে বয়স আর পদমর্যাদায় রুডোই
সবার ছোট। দেড় বছর লাগবে নিনি গ্রহে পৌছাতে।
চলবে
এতো কষ্ট করে আপনাদের জন্য গল্প লেখা হয় আর আপনারা একটা লাইক না দিয়ে শুধু গল্প পড়ে চলে যান
বড় কষ্ট হয় এসব দেখে।

Sk imran, Rasel islam, Raihan khan, Badol hasan, Mr faruk, Sumaiya akter, Rokeya hoq and লেখাটি পছন্দ করেছে

avatar
নবাগত
নবাগত
Posts : 8
স্বর্ণমুদ্রা : 152
মর্যাদা : 10
Join date : 2021-06-05
View user profile

মহাকাশে দুঃস্বপ্ন Empty Re: মহাকাশে দুঃস্বপ্ন

Sat Jun 05, 2021 11:37 pm
পর্ব : ২

মহাকাশের দীর্ঘ যাত্রায় মহাকাশচারী দের
সময় কাটানোর প্রধান কৌশল হলো
শীতল ঘুৃম। শীতল ঘরের ক্যাপসুলে যার
যতো দিন খুশি সময় সেট করে ঘুমিয়ে
পড়া যায় নির্দিষ্ট সময় শেষ হলে স্বাভাবিক
ঘুম ভাঙার মতোই জেগে উঠবে। দীর্ঘ ঘুম
হলেও এতটুকু ক্লান্তি বা অবসাদ থাকবে না
মনে হবে রাত ১০টায় ঘুমিয়ে খুব ভোরে ঘুম ভেঙেছে। রুডোর দুই সঙ্গী এরই মধ্যে
ক্যাপসুলে ঘুমিয়ে গেছে। টানা কয়েক মাস
ঘুমিয়ে জেগে উঠবে তারা। রুডো ইচ্ছে
করেই ব্যতিক্রম করল। অতন্ত যতটা দিন একঘেয়েমি না আসে, যাবে না শীতল ঘুমে।
সারা দিন এটা-সেটা করে সময় কাটায়।
ইচ্ছে হলে জালানা দিয়ে বাইরে তাকিয়ে
উল্কা, তারকারাজি দেখে কাটিয়ে দেয়
অনেকটা সময়।
জালানার পাশের একটা সুইচে চাপ দিয়ে
জালানার উপর থেকে কালো আবরণটা
সরিয়ে দিল রুডো। মুহূর্তেই এক বর্গ ফুটের
জালানা দিয়ে দৃষ্টি হারিয়ে গেল বাইরের
অসীম জগতে।
আবছা আলো - আধারি জগৎ। তারাদের
ছুটাছুটি দেখতে দেখতে হঠাৎ যেন ভূত
দেখার মতো চমকে উঠল রুডো।
এটা কি দেখছে ! ওদের মহাকাশযানের
সমান্তরাল আরেকটা মহাকাশযান ছুটে
চলেছে একই পথে।
(চলবে)

Sk imran, Rasel islam, Raihan khan, Badol hasan, Saiful Osman, Sumaiya akter, Rokeya hoq and লেখাটি পছন্দ করেছে

avatar
নবাগত
নবাগত
Posts : 8
স্বর্ণমুদ্রা : 152
মর্যাদা : 10
Join date : 2021-06-05
View user profile

মহাকাশে দুঃস্বপ্ন Empty Re: মহাকাশে দুঃস্বপ্ন

Sat Jun 05, 2021 11:38 pm
পর্ব : ৩ (শেষ)

এতটা কাছ দিয়ে চলছে যে খালি চোখেই
দেখা যায় ; কিন্ত মহাকাশযান রিক্ট-১৬ এর
কম্পিউটার সিডিসি তো রুডো কে কিছুই
জানায় নি যে এত কাছ দিয়ে আরেকটি
মহাকাশযান চলছে ! পৃথিবীর কন্ট্রোল
রুম থেকেও কোনো বার্তা পায়নি।
মহাকাশে কয়েক হাজার মাইলের মধ্যে
কোনো যান কিংবা অনাকাঙ্ক্ষিত কিছু
থাকলে তা জানিয়ে দেওয়ার কথা
কম্পিউটার সিডিসির। কিন্ত এই
মহাকাশযানটা তো মনে হচ্ছে মাত্র কয়েক
মাইল দূরে। বুকটা ধক করে উঠল রুডোর।
মহাকাশযানের সিস্টেমে কোনো গোলমাল
হয়েছে নিশ্চয়ই। দলনেতাকে এখনই
জাগাতে হবে ক্যাপসুলে ঘুমানো থেকে। তার
আগে পরিস্হিতিটা ভালো করে বুঝে নিতে
যোগাযোগ মডিউল অন করল রুডো।
কন্ট্রোল রুমের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা
করল; কিন্তু কোন লাভ হলো না। কোনো
সিগনালই আসছে না। তবে কিছুক্ষণ পর
পর একটি আজানা সিগনাল পেল রুডো।
কয়েক সেকন্ড দ্বিধা করে অবশেষে রিসিভ
করল সেটি। ভেসে এলো আজানা কণ্ঠস্বর।
'তোমাদের বহু আগেই আমর নিনি গ্রহে
অফিযানের পরিকল্পনা করেছি ' বলল
সেই কণ্ঠস্বর। 'ওটা আমাদের গন্তব্য,
তোমরা সেখানে যেতে পারবে না'।
'কারা তোমরা, ভয় আর আতঙ্ক চেপে
রেখে অনেক কষ্টে প্রশ্ন করল রুডো।
'আমরা মহাজগতের সবচেয়ে বুদ্ধিমান আর
উন্নত প্রাণী। তোমাদের মহাকাশযানের
সিস্টেম অচল দেখে নিশ্চয়ই বুঝতে
পারছ আমাদের ক্ষমতা। তোমাদের
মহাকাশযান এখন পুরোপুরি আমাদের
নিয়ন্ত্রণে। মেরুদণ্ড দিয়ে একটা শীতল
স্রোত বয়ে গেল রুডোর। কিছু একটা করতে
হবে।সবার আগে ক্যাপসুল থেকে জাগিয়ে
তুলতে হবে দলনেতাকে।
'তোমাকে সর্তক করা হচ্ছে রুডো ' এবার
কথা বলে উঠল আরেকটি কণ্ঠ। এই কণ্ঠটি
চিনতে পারল রুডো। মহাকাশযানের
নিয়ন্ত্রণকারী কম্পিউটার সিডিসির যান্ত্রিক
কণ্ঠ। তাহলে কি শত্রুর কবল থেকে মুক্ত
হয়েছে তাদের মহাকাশযান ! আবার
সিডিসি বলল 'মহাকাশযানের শৃঙ্খলা নষ্ট
হচ্ছে তোমার হেয়ালিতে। এবার সম্বিত ফিরে
পেল রুডো। আশে পাশে তাকিয়ে দেখল
মহাকাশযানে নিজের শয়ন কক্ষে রয়েছে
সে। জালানার কছে নয়। এতক্ষণ কী
ঘটেছে সেটি বুঝতে চেষ্টা করল রুডো।
কম্পিউটার সিডিসি আবার বলল,
'একাকিত্ব মানুষকে নানা সমস্যায় ভোগায়।
তোমার সঙ্গী দুই নভোচারী শীতল ঘুমে,
তুমি এক সপ্তাহ ধরে একাকী সময়
কাটাচ্ছ। ক্লান্তি আর অবসাদে এতক্ষণ
দুঃস্বপ্ন দেখছিলে। তোমার দ্রুত ক্যাপসুলে
শীতল ঘুমে যাওয়া উচিত। এক ঘণ্টার
মধ্যে না গেলে জোর করে শীতল ঘুমে
পাঠানোর নির্দেশ রয়েছে আমার উপর।
(সমাপ্ত)

Rasel islam, Raihan khan, Badol hasan, Mr faruk, Saiful Osman, Sumaiya akter, Rokeya hoq and লেখাটি পছন্দ করেছে

Back to top
Permissions in this forum:
You cannot reply to topics in this forum